বর্ষায় পদ্মা পারাপার নিয়ে শংকা প্রকাশ, নিরাপত্তা নিশ্চিতে ৭০ টি সিদ্ধান্ত

অন্যান্য বিশেষ সংবাদ মাদারীপুর শিবচর

Shibchar Kathalbari Ghat Eid Preparation Metting

শিবচর প্রতিনিধিঃ আসন্ন ঈদে দক্ষিনাঞ্চলের যাত্রী নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে শিবচরের কাঠালবাড়ি ঘাটে প্রশাসনের সাথে বিভিন্ন যানবাহন, নৌযান, ফেরি সংশ্লিষ্টদের নিয়ে প্রস্তুতিমুলক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় কর্মকর্তারা আসন্ন ঈদ বর্ষা মৌসুমে হওয়ায় উত্তাল পদ্মা নদী পারাপার নিয়ে শংকা প্রকাশ করে যাত্রী নিরাপত্তা নিশ্চিতে কঠোর হওয়ার ঘোষনা দেন। কর্তপক্ষ উত্তাল পদ্মায় দূর্ঘটনা এড়াতে লঞ্চে অতিরিক্ত যাত্রী বহনে বিধিনিষেধ, যাত্রী চাপ বাড়লে ফেরিতে পারাপার, সন্ধার পর স্পীডবোট চলাচলে নিষেধাজ্ঞা-বাড়তি ভাড়া নিয়ন্ত্রনসহ সভায় প্রায় ৭০ টি সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। গঠন করা হয় ঘাট ব্যবস্থাপনা কমিটি।

জানা যায়, শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুট হয়ে দক্ষিনাঞ্চলের ২১ জেলার যাত্রীদের ঘরে ফেরা নিশ্চিত করতে বৃহস্পতিবার বিকেলে কাঁঠালবাড়ি ঘাটে বিভিন্ন যানবাহন, নৌযান, ফেরির সংশ্লিষ্টদের নিয়ে সভা করেছে পুলিশ ও উপজেলা প্রশাসন। সভায় বর্ষা মৌসুমে ঈদের আগে-পরে পদ্মা নদী পারাপারে যাত্রীদের ঢল নিয়ন্ত্রনে সবাইকে সতর্ক করেন প্রশাসনের কর্মকর্তারা। এসময় নৌরুটের লঞ্চে অতিরিক্ত যাত্রী বহনে কঠোরারোপ, সন্ধার পরে স্পীডবোট চলাচলে নিষেধাজ্ঞা, স্টিকারবিহীন লোকাল যানবাহন কাওরাকান্দি ঘাটে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা, লঞ্চের কাটা সার্ভিস কাওড়াকান্দি ঘাটে স্থানান্তর,যাত্রীর চাপ হলে ফেরিতে পারাপার, পদ্মায় পুলিশের টহল, যাত্রীদের সেনেটারি নিশ্চিতকরন, ধারন ক্ষমতার বাইরে যাত্রী বহনে নিষেধাজ্ঞা, সড়ক পরিবহনের ক্ষেত্রে ভাড়া ও অতিরিক্ত যাত্রী উঠানোতে নিষেধাজ্ঞা,আইন-শৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা বিষয়ে বিশৃঙ্খলা ঠেকাতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে সার্বক্ষনিক ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা,ঈদের আগে-পরের ৮ দিন ঘাট প্রশাসন নিয়ন্ত্রন করাসহ সভায় প্রায় ৭০ টি সিদ্ধান্ত নেয়া হয় । সিদ্ধান্তগুলো বাস্তবায়নে ঘাট ব্যবস্থাপনা কমিটি গঠন করা হয়েছে। জেলা প্রশাসক ওয়াহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার উত্তম প্রসাদ পাঠক, সহকারী পুলিশ সুপার আনোয়ার হোসেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইমরান আহমেদ, ওসি জাকির হোসেন, হাইওয়ে ওসি মাসুদ পারভেজ ভূইয়া, পরিদর্শক উত্তম কুমারসহ দক্ষিনাঞ্চলের বিভিন্ন জেলার যানবাহন মালিক শ্রমিক নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

জেলা প্রশাসক ওয়াহিদুল ইসলাম সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে বলেন, এবার ঈদ বর্ষা মৌসুমে তাই আবহাওয়া খারাপ হলে লঞ্চ ও স্পীডবোট বন্ধ করে ফেরিতে যাত্রী পারাপার করা হবে। পরিবহনসহ সকল ক্ষেত্রে অতিরিক্ত ভাড়া নিয়ন্ত্রন করা হবে। কোন প্রকার যাত্রী হয়রানী হলে কঠোর ব্যাবস্থা নেওয়া হবে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *